1. admin@ekushdarpon.com : ekushdarpon.com :
মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৯:২২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
মাদারীপুরে এনএসআই’তে চাকুরী দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়া চক্রের নারীসহ ৪ সদস্য আটক ইতালীর ভেরনাতে লকডাউন বিহীন স্বাভাবিক জীবনের দাবীতে মানববন্ধন মাদারীপুরে ভুল চিকিৎসার অভিযোগে হাসপাতাল মালিক কারাগারে মাদারীপুরে করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ মোকাবেলায় জেলা পুলিশের প্রচারনা মাদারীপুরে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীতে পৌরসভার আয়োজনে সহস্রাধিক কোরআন হাফেজগণের কন্ঠে ১০০ বার কোরআন শরীফ খতম ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মাদারীপুরে দুই শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগ মাদারীপুরে মামলার প্রক্সি দিতে এসে আটক মাদারীপুরে বাস চাপায় নিহত ১, বিক্ষুব্ধ জনতার বাসে আগুন কি লাইগা ঘরডা ভাঙ্গল,অহন কই থাহুম মাদারীপুরে ৩৭টি কচ্ছপ ও ৮৭টি কচ্ছপের খোলসা উদ্ধার॥ কচ্ছপ বিক্রেতার ৬ মাসের কারাদন্ড

মাদারীপুরে দুই শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১
  • ৩৮ বার পড়া হয়েছে

মাদারীপুরে দুই শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

শিবচর প্রতিনিধি

মাদারীপুরের শিবচরে দুই শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে এক সালিশ মিমাংশায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান অভিযুক্তকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা,বেত্রাঘাত ও এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শিবচর উপজেলার উত্তর বহেরাতলা ইউনিয়নের যাদুয়ারচর সাত্তার মাদবরের কান্দি গ্রামে।

স্থানীয় ও শিবচর থানা সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি উত্তর বহেরাতলা ইউনিয়নের যাদুয়ারচর ছাত্তার মাতদবরের কান্দি গ্রামে দুই শিশু কন্যাকে স্থানীয় মৃত ধলু মিয়া মাদবরের ছেলে আকমন মাদবর (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে জাম্বুরা খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে যৌন নির্যাতন চালায়।

পরবর্তীতে যৌন নির্যাতনের ঘটনা জানাজানি হলে গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে উত্তর বহেরাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন হায়দার হাওলাদার নির্যাতিত শিশুকন্যার বাড়িতে সালিশ মীমাংসার বৈঠক করেন।সালিশে অভিযুক্ত আকমন মাতবরকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা সেই সাথে ১০ টি বেত্রাঘাত করে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেন সালিশদাররা। সালিশ করা হলেও চেয়ারম্যানের প্রভাবে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়নি।

জানাজানি হলে ৮ মার্চ রাতে শিবচর থানায় সালিশের বিষয়টি এজাহারে উল্লেখ করে অভিযুক্ত আকমন মাতবরকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিবচর থানার ওসি মো. মিরাজ হোসেন।

সালিশ প্রসঙ্গে উত্তর বহেরাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন হায়দার হাওলাদার সালিশ মীমাংসার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি সালিশে যেতে চাইনি।কিন্তু এলাকার মুরুব্বিরা আমাকে সালিশে ডেকে নিয়ে গেছে। আমি মেয়ে পক্ষকে বলেছিলাম আপনারা থানায় যান, তারা থানায় যায়নি।

এদিকে শিবচর থানার ওসি মো. মিরাজ হোসেন বলেন, আমরা যৌন নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানের সালিশ মীমাংসার খবর পেয়েই এলাকায় পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। গতকাল নির্যাতিত দুই শিশুর অভিভাবকদের থানায় ডেকে এনেছি।

পরে নির্যাতনের ঘটনায় স্থানীয়ভাবে ইউপি চেয়ারম্যানের সালিশের কথা উল্লেখ পূর্বক অভিযুক্ত আকমনকে আসামিকে করে মামলা নিয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত